শাহীন রায়হান

 


 দুটি কবিতা




নদী ও শূন্যতা


পরিত্যক্ত কতগুলো নদীর কঙ্কাল
নিঃশব্দে উড়ে যায় শকুনের ঠোঁটে।
নদ-নদীর সঙ্গম যেন আজ অদৃশ্য রূপকথা
যা গল্প কথায় শুধু কৌতূহল বাড়ায়।
অথচ ওদের জীবন সিঁড়ির ধাপগুলোতে
আজ কোন জল নেই।
আছে প্রাণহীন বিরহ বেলুন ঢেউহীন আর্তনাদ
আর শুধুই জলহীন শূন্যতা-

আমার অনন্ত ভাবনায় উড়ে যায়
এক টুকরো নদী ভাঙা আশঙ্কার কালো মেঘ।
তবু আমি মেঘ ও আশঙ্কার মধ্যে কোন পার্থক্য খুঁজি না-
শুধু খুঁজি জলের গহীনে নদ-নদীর চির কাঙ্ক্ষিত জল সঙ্গম-
গাঙচিল জলপিপির অফুরন্ত উড়াউড়ি
সন্ধ্যার আবছা আলোতে এক মায়াবী নদীর-
প্রেমময় রূপালী জলস্রোত।



নিভৃত নীশিথে



আলো ও আঁধারের মাঝামাঝি দাঁড়িয়ে
সবুজ তুলির মতো, জীবনের প্রতি পাতায়
স্বর্ণলতা শুধু তোমাকেই আঁকি।

কি অদ্ভুত মায়াজালে প্রতিদিন তোমার
মুখোমুখি দাঁড়াই

অভিমানী তুমি চোখের কার্ণিশ ঘেষে
তবু হারিয়ে যাও মেঘের আঁচলে-

অতঃপর আমি -
স্মৃতির ব্যাকরণ ঘাটি অন্তর্জাল ছিঁড়ে
ধ্যানী বৃক্ষের মতো, চোখের পাতায়
নিভৃত নীশিথে খুঁজি, শুধু তোমাকেই।