দেবযানী বসু

 


দুটি কবিতা


ডন দেবযান্নীর পচাচোখ

দু পশলা হাহাকার ছড়িয়ে সব্জিবাজার শিশিরের শূন্যশরীর ভরেছে। যাদুলাঠির অন্ডকোষ হারানোয় আমরা বিব্রত। সবসময় এত কিছু আলোচনার থাকে যে পৃথিবী সর্বশ্রেষ্ঠ স্পিনার নয় জেনে জয়ী অথবা পরাজিত কোনোটাই হতে পারে নি। তাই সমস্যা বেশি। তেল মাখানো যন্ত্রপাতিদের তোল্লাই দেওয়া আমাদের স্বভাব। অবরোহন ও আরোহনের ছবি বাজারে বিখ্যাত তখন হাতটি অদৃশ্য। তেপায়া  বুঝেছে কখোন দেয়াল খুনী হয়ে যাবে। পিজাটপিং এর নারীটি উলংগ ব্যালকোনির ভরসায়।



ডন দেবযান্নীর ফুলো চোখ

সোনালী সিংহর কান্না খাঁচা চাপা দিতে পারেনি। সবুজ স্থলীর স্পন্দন আঙুলে ছুঁয়ে বিহ্বল এমন শতাব্দির অপেক্ষায়। সিংহকেশর দোলাচ্ছে ঢেউ সিংহকে আমন্ত্রণ জানিয়ে। আমাদের মার্চপাস্ট বালি কাঁকড়ার স্তত্রতায় সুন্দর দেখাচ্ছে। উপশম ঝরাতে ঝরাতে ওষুধরাও রাতের তারা। কান্নাপ্রধান তারাদের জোড়চেলী  সামুদ্রিক হাওয়ায় মাছুয়াদের হাতে নীলরক্তের কাঁকড়া ধরিয়ে দেয়। অজান্তে কাঁকড়ার দল ডোডোপাখি হবে। এদিকে  অশোকছাতা ছুঁয়ে পা ঋতুমতী।


 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন