সুদীপ বিশ্বাস

 

দুটি কবিতা

 

 সহধর্মিণী


তিনি ঘরে মিস্টিসিজম তৈরী করেন প্রতিদিন, ঘর আরো আলোকিত হয় আঁধারের অপার মিতালিতে বসবাস আমাদের। সহবাস ভ্রমরের মতো মধুকর, উপাদেয় আতরদানি। কোথাও বৃষ্টি নামলে সবার আগে ছলাৎ ছল তরী আমার অভিগমন করে, নদী শোবারঘর ছাপিয়ে উজানো পথের ক্লান্তিজনিত ক্লেশবোধ উপশম করে নতুনখাতার মাদকতা। অস্মিতা অপেক্ষক, আমি বারোয়ারি বাজার, তেলডিপো, গহনার সৌখিনতা পেরিয়ে জলখাবারের টেবিলে মৃগনাভির আস্বাদক। বিরহতলার পাঠশালায় গান হয়ে ওঠে আমাদের দৈনিক পরিক্রমণ।

 

দেশান্তর

 

হালাল রাত্রিচরা আরোহণের ম্যাজিক সাজায় যায়েজ কথাময় দেওয়ানতলার হাট,

মৃগীরোগা স্কুলঘর দিদিমণি বুকপেট মেপে নেয় নয়নজুলিতে।

মহাসড়ক পেরিয়ে আরো গলিপথ

কুলতেপাড়া দামোদর বিছানো আচরাচর

সবখানে বিধবার শবাসন,

যমুনাতীর সাঁতারে সময় চষা বেনামা চিঠি কারসাজি,

আবাহন পিয়াস বোঝেনা,

শুধু,

শবরী সবখানে মেলে দেয় ভোর।

 


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন