রবিন বণিক

 

গুচ্ছ কবিতা



রহস্য


পুরনো  স্যাক্সোফোনের  মতো  গৃহস্থ  বিছানায়  আমাদের  রহস্য

রহস্যের  কোনো  নাম  নেই

চাদরে  ছিটেফোঁটা  বাতাসের  দাগ

বালিশের  গায়ে  কেবল  প্রাচীন  হারমোনিয়াম

পায়ায়  বিগত  সভ্যতার  গন্ধ

নাম  নেই,  রহস্যের  ভেতরে  কেবল  গাছের  ভায়োলিন

অযথা  সুন্দরের  মতো  আমাদের  ঘোড়া  বিনিময়

 

পাতার  উপর  অসংখ্য  সঙ্গম 

যৌন  অর্থনীতির  মতো  মেষপালকের  অধিকাংশ  দখল–





অসাধারণ 


অসাধারণ  ভেঙে  যাওয়া  মানে  এই  নয়

সমস্ত  আচমকা  একদৃষ্টে  তাকিয়ে  হাওয়ার  অসভ্যতায়

অসাধারণ  ভেঙে  যাওয়া  মানে  এই  নয়

বিষয়  ভাঙতে  ভাঙতে  ডুবে  যাওয়া  কোনো  গাঢ়  পরিকল্পনায়

অথচ

দেহের  ফলাফলে  ফুটে  আছে  মস্ত  বড়  ঈগল

দাম্পত্য  থেকে  কিছুটা  দূরত্বে  আমাদের  গণতান্ত্রিক  উঠোন

অসাধারণের  ভেতর  আমাদের  বিচিত্র  কৃষিক্ষেত্র




জন্মান্ধ চিল


রতিক্রিয়ার মতো ফুটে আছে পাখির দল

খুঁজে  বেড়াচ্ছি,  উদ্ভিদের  পর  উদ্ভিদ

তারপর  উদ্ভিদ  এবং  তারপর  যথারীতি  একটি  অলিখিত  পৃষ্ঠায়...

আসলে  কিছুটা  জানি,  আমরা  কিছু  পারি  না

পাখি,  ফুল,  রতিক্রিয়া  আমরা  জানি  না

আমরা  মানুষ  পারি  না,  আকাশ  পারি  না,  জল  পারি  না

না  পারার  কারণগুলো  আমাদের  অন্ধকারের  মতো  মুখস্ত

 

পেরে  উঠতে  পারলে  সংবিধানের  মাত্রায়  একটিও  জন্মান্ধ  চিল  বসে  থাকতো  না–


--------------------------------------

ছবি ঋণ: তাপস দাস






1 টি মন্তব্য: