নীহার জয়ধর


গুচ্ছ কবিতা


 

বিপরীত বায়ু 



ভালো বাতাস এলে তোমাকে বলার কথা ছিল 

তুমি সেদিনই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির কাগজটি সরিয়ে ফেললে 

এসেছিল 

তুমিও জানতে নিশ্চয় 

যদি আমার হাতে জালের খুট দিয়ে ঘুমোতে না যেতে 

বাতাসেরা সংসার গুটিয়ে ফিরে গেল 

  

ভালো মন্দ বেছে নিল যোগ‍্য আর রঙিনেরা 

তারপর মহাসাগরেরা নিজেদের বসিয়ে দিল কপাল ভাতিতে 

ভালো বাতাসের লুকিয়ে রাখা জামা ভিজে গেল মৌসুমি বর্ষায়।

           

এখন আমি  একটা ভিন্ন নিজ খুঁজছি 

তুমি এখন অনেকটাই সড়গড় 

তোমাকে আটকাতে গিয়ে মানবসম্পদ দপ্তরের চক্ষুশূল বিকেলের ছায়ারা 

প্রেমিকা অন‍্য পথে হেঁটে গেলে স্থানু আসন আর গৌরবের নয় 

        

অথচ দেশে দেশে বাতাসের জন্ম নিয়ন্ত্রণ চলছে




                   সম্ভব -না



ধরো,

জাপানী বিমান কখন বোমা ফেলবে 

সেই আশায় মেসের ছাদে গিয়ে দাঁড়িয়ে দেখছি কালপুরুষ 

অপেক্ষা তো এমনও হতে পারে সাদা সাহেবের মেয়ে 

মুখ থেকে মুখে ঠেলে দিয়েছিল চকলেট 

ভালো না লাগা একব‍্যাগ মার্ক্স নিয়ে ঘরে বসে  ঘামছে সুপুরুষ 

মার্কিন সাম্রাজ্যবাদ নিপাত যাক, বাইরে চলছে মিছিল 

মেসের খাটে শুয়ে ব‍্যক্তিগত সম্পর্ক আর বিপ্লব 

গুলিয়ে না ফেলার তালিম দিচ্ছে নকশাল 

বাড়ি থেকে আসা খেজুর গুড়ের মোয়ার মচরমচর 

বিনা তারে পৌঁছে যাচ্ছে বিলেত

           

আমি তখন একটা যুদ্ধ শেষ শহর 

সাহেবের বিক্রি বাটা শেষ 

বাড়ি পেয়েছে বাবুর্চি রশিদ 

সহিস নিয়ে গেছে ভালোবাসা শুয়ে থাকা খাট 

দেশপ্রমিক তখনও রাতের হৃদয়কে বাহাত্তর স্লাইসে বিশ্লেষণ করে চলেছে 

ঘুষখোর কানাই বাবু এখন কৃষ্ণকান্ত গোস্বামী 

মেষ শব্দে যতটুকু স্নেহ ও ঈশ্বরের নাম জড়িয়ে থাকে 

 তাতেই স্বাধীন গড়ের মাঠ ভরবে থইথই

        

আফসোস, একসময় সরবিট্রেট জড়িয়ে শুয়ে পড়ল 

দু-একটা ইংরেজ পেটানো লোক ময়দান ছেড়ে এখন যক্ষায় ভুগছে 

নিয়তির সঙ্গে অভিসারে মর্যাদা পুরুষোত্তম এঁটো সিগার খুঁজছেন 

দুই উঠতি নারীর কাঁধে ভর দিয়ে স্খলিত বসনের সাধুবাওয়া হেঁটে যাচ্ছেন 

গুলির ভবিষ‍্যৎ বানী সফল করবেন একদিন



ক্ষয় রোখে আক্রান্ত আমার সাতটি দশক, হে রাম...



দৃশ‍্যযন্ত্রণা



গলায় পুরুষ হাঁড়, পৃথিবীর ওঠানামা দেখা যায় 

মগজে মায়াবি মিথ‍্যা বাসাভাড়া করে 

ঊর্ণায় নাভি জড়ানোই ইতিহাস 

তুমি সামনে দাঁড়ালে

               

নিভৃতে বিম্ব ভাঙে নিয়মিত 

চির অসম্পূর্ণ প্রসাধন অসুখে আমি সময় 

নিশ্চিন্তে দুহাত খুলে বুক ভালোবাসা মাপে 

যোগ‍্য পড়শি হবো, আয়না বসেছিলে নিখুঁত ভরসায়

              

কোন উষ্ণতা সহজ বা মিথোজীবি নয়, সঞ্চয়ে-সাধনায় 

শ্রম খিদে কামে নিতান্তই মধ‍্যবিত্ত প্রতিবেশী 

প্রেমিক চিরদিন সাধারণ সৈনিক মথুরায় 

               

বাঁশির হাওয়া খেলা দেখি, নিরাপদ দূরত্ব বজায় 

পরমপুরুষ সিংহাসনে, যথাযোগ‍্য আলো ঠিকরায় 

সাধ‍্যের কাটাকুটি ঘরে চাহিদার সংশোধন  

দৃশ‍্যের নির্যাতনে চক্ষু রাজসাক্ষী হতে চায়