চিরঞ্জীব হালদার

 


দুটি কবিতা


শূন্যতা বিষয়ক


শূন্যতা বিষয়ক কথা বলতে বলতে ভুলে গেছি

অদৃজা বিন্দুতে চারজন অপেক্ষা করবে

ভাসমান গর্ভের ভেতর থেকে বের করে আনি জলের পোশাক

ঘনায়মান সুতরাংকে বলি অপেক্ষা করুন

আপনার আপেল ধর্ম আর তুলসি রীতি সমীচীন ভেবে

বোতাম আর ঘরের মধ্যে বিভাবরী কে নজর রাখুন

প্রায়ই নিস্তব্ধ চাবিরা চারজনের একজন আগুন ভীতু

ফুলকি দেখলেই ভুলবসত খুলে ফেলে মুখের প্রসাধন

বাকি রইলেন অব্যয়কাকু

অপেক্ষার হিসেব করতে করতে তিনি ঢুলুঢুলু

বিষকরবীকে বলেছি আপনার ঘনায়মান যত্নগুলো তার জন্য বরাদ্দ রাখুন

ঝিমানো নদী পেরিয়ে এই আমি এলুম আরকি।



 

লৌকিক কবিতার প্রস্তাবনা


ধরে নাও বসন্ত একটি মৃত পাতাও ধার দেবেনা

তোমার দেহের সব লোহিত কনিকার বিনিময়ে

উপযাচক আলোয়ান রূপকথার গল্প শুরু করলে

ভুলে যাবে বদরাগী প্রণয়ীর ছিচকাঁদুনে

খুচরো সঙ্গদান।

 

দিনগুলো আফিম আর জলজ নাবিকানায় ছলাৎছল

একাকী তোরঙ্গ থেকে বের করে আনা

ডাইন পোশাক কোন এক দিঘীতে নামিয়ে বলবে

যাও তিনটে নধর শালুক নিয়ে এসো।

 

পঙ্গু কলমের জারজ হরফ থেকে জন্ম নেওয়া কালপুরুষ 

তুমি তার অলৌকিক ব্যালাডস