আমিনুল ইসলাম

 




গুচ্ছ কবিতা


তালিম
০১/০২/২০২২

স্রোত চোরাই ~
যখন প্রাণবায়ু ছড়িয়ে দেয় জানালায়
আর বদ্ধ পুকুরের জীবন

হাঁটুর ব্যথা
কলজে নিংড়ে নিলে
দূরে পলাশ ফুটতে পারে

দিগম্বর নীল বাজায়
কারো কারো অসহ্য মনে হয়
সহ্যের সীমায় ভালোবাসার একটি পুকুর
১০০দিনের কাজে হয়েছে খোদাই

তুমি জানতে ~
অন্তরিক্ষ - পাতাল
খুঁটিনাটি সবকিছুর মাঝেই
লুকিয়ে আছে সুন্দর
শুধু চোখকে তালিম দিতে হয়...

 

হে পরম তুমি সত্য যখন বিস্তৃত জানালায়
৩১/০১/২০২২


তরঙ্গ থেকে বিচ্যুতি ঘটলে
বস্তু মাটিতে ডোবে~
অতল জলে টাইটানিক

মন নিগুঢ় বন্ধন ছিঁড়ে অন্তরিক্ষে ~

আমার গরিমা গরল মোম!
চুমুকের বিস্ফোরণে মাখন
পিঘলে যাওয়া সময় পরম
স্পর্শ করে কথাদের বারণ

বাতাস~ হৃদয় বিশারদ!
উলঙ্গ ডানায় বয়ে চলেছে ~

আমি কাঁদছি।  তোমারই জন্য।
তোমাকে আমার ভেতর লুকিয়ে~
গ্রহ থেকে, অন্য গ্রহে।
  অন্য ছায়াপথে।  ব্যাপ্ত।  সুগভীর। কষ্ট। 
ওরা উড়ন্ত।
  বিকীর্ণ ~

হাওয়ার তরঙ্গ, আদর করে ফর্মালিনে চোবাই~

আরও আরও বাড়িয়ে তোলো চাপ
চিড়ে চ্যাপ্টা হওয়ার মতো এটুকু- যথেষ্ট নয়


হাওয়ায় মূর্ছিত আত্মা
গাছেদের পরম আত্মীয়তায় বরফ

তুষারের ঘুম
প্রখর তাপে দগ্ধ হয়ে গড়িয়ে নামছে ঘাম
চিঠি খুলে রোদ উড়ে আসে তখন
বুকে নগদ টাকার রক্ত চক্ষু বর্ণ শূল

বিছানায় আকাশ ভর্তি আলো
আদরের আলুথালু মেঘ নেমে এসে আদর করে


হুটহাট জানালা খুলে যেতে চাও?
নিঃস্ব বাতাস চিকন গালে সিফনের আস্তিন
এঁটো আঁটির উপর চোখ বোলাও?
সর্বস্ব তোমার করে, দিয়েছি লোভের ভাসান

দৃশ্য থেকে দৃষ্টি চুরি
ভবঘুরে শুয়োপোকা উড়তে চায়
ঈশ্বর ডানা দিলেন
তার ওপর রচিত হল অহংকার

আজ জানালা বন্ধ রেখেছো বলে
বাতাস উপেক্ষিত, মুখ গুমরে স্তম্ভিত চৌকাঠ ~

 

 

 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন