দেবাশিস সাহা

 





দুটি কবিতা


ভাষা

পৃথিবীর সব পাখিকে করো এক জায়গায় 
মহাকাশের মতো সমুচ্চারিত সে কুহুকুহু
দেশান্তরের দিগন্তরেখায় যায় মিশে-
গাওয়া হয় পৃথিবীর গান।
মিশে থাকে জীবনে অথবা অকাল প্রয়াণ।

পৃথিবীর যত আছে নদী নালা সাগর
একই সুর প্রবাহিত, জন্মান্তরে যায় সনাতনী স্রোত

সব পশুকে নিয়ে করো চিত্রিত সমাগম
তৃণভোজী মাংসাশী ভেদাভেদ সরে যায়
এ পৃথিবীর বুকে লেগে থাকে স্পষ্ট পদচিহ্ন।
মুছে যায় বনান্তর ছায়াপথ ভিন্ন।

সুউচ্চ পাহার যত আছে নীচে শোয়া সমতল
ওরাও বলে কথা ফিসফিস নিবিড় সঙ্গোপন।

জড়ো করো পৃথিবীর সব ফুল আর পতঙ্গ রঙীন
কথামালা ক্যানভাস ভরে ওঠে সুমধুর স্বরলিপি
মিলেমিশে এক হয় এক সুর এক গান এক ছবি
সব কথা ভেসে যায় পৃথিবীটা গান গায় তথাপি।

 

শুধু মানুষ বলেনি কোন কথা।
নশ্বর জীবনে হারিয়েছে প্রেম আর ভালোবাসা
তবুও কথিত হবে হেঁটে যাবে দু'পায়ে বহুদূর
খানিক মনের কথা বলে নিলে ভালো হতো-
            আকাশটা মিশে যায় জল-স্থল বন্ধুর।


 


 ছায়াবৃত্ত

                                                              

                      কিছু আলো থেকে যায় আঁধারের কাছে
             নিরালোকের কিয়দংশ ঘুমায় উদ্ভাসিত কোলে
       বিভাজিত সময়ের বুকে দ্বিখন্ডিত ছায়াবৃত্ত জন্মায়

                সুখ দুঃখের মিলনস্থলে বেড়ে ওঠে বোধিবৃত্ত
             ভালো মন্দের সম্ভোগে লুটায় নির্বিকল্প সমবৃত্ত
    জীবন মৃত্যুর সংগমস্থলে ফোটে অন্তহীন চরাচরবৃত্ত

                                      আলোহীন পরিসর তমসাবৃত্ত

                                       দুঃখের তেপান্তর আনন্দবৃত্ত 

                                  মিথ্যের অববাহিকায় সচ্চিদাবৃত্ত

                                মৃত্যুর গর্দানে লেখা হয় জীবনবৃত্ত

                             ছায়াবৃত্ত আসলে তো আলোকবৃত্ত।

 


 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন