সমরেশ মন্ডল

 

কবিতা


সমর্পণের ভাষা,দীক্ষিত হৃদয় 

 

ভাসিয়ে দিয়েছিলাম বিশ্বাসের উপর 

আলো জ্বলেনি তাই,

তাইতো মলিন হয়েছে রেখা, তাইতো বিশ্বস্ত 

থেকেছে স্বচ্ছ উপলব্ধি।

তারপর যা হয় হোক, আমাদের হাতে সত্যি বলতে কিছুই নেই।

 আমাদের দৃষ্টিভ্রম সবকিছু আমার দেখি,

 ভেবেও ফেলি তাই,নইলে এমন অখন্ড পৃথিবী 

বুকের ভিতরে, হৃদয়ের মাঝখানে ;এসব ছেড়ে কি কেউ আলো খুঁজতে এত দূরে যায় ?

 

আকাশে ভেলা ভাসানো মতো মনের পাল্লায় 

ভারি দুর্লভ এক সন্ধ্যায় দেখা হয়েছিল, পৃথিবীর

গাছপালা সবচেয়ে দুর্লভ এই জগতের চেনা হয়ে

মাথার উপর ছাতা হয়েছিল। 

 তাতেও কি আর আলো বাতাসের উপর বিশ্বাস রাখতে পারা যায়?

 

 তারা কি চঞ্চল হয়ে ওঠে হীন এই অপরাহ্ন বেলায়,

সবকিছু গুটিয়ে;ঝরে পড়ে আলো-ছায়ায়।

 

বিশ্বাস হারানোর পর‌ও তুমি থাকো,

আর প্রথাগত বিন্যাস খুলে, একটি বহুতল বুকে

অনেক কথা লুকিয়ে রাখতে জানো 

সময়ের কড়ি দিয়ে গুনে গুনে খেলতে ভালোবাসো;

 নিজস্ব পরিমাপ।

 

 আলো খুঁজতে খুঁজতে একদিন তোমার কাছেই চেয়ে বসবো সমর্পণের ভাষা, দীক্ষিত হৃদয়

 

সেই কথা জানে।