ঐন্দ্রিলা মজুমদার

 


দুটি কবিতা


 ১.

অন্বেষণ 



এখানে পিঞ্জরাবদ্ধ হিমেল কুয়াশা 

রোদ্দুরের চুম্বন তাই বিষাক্ত ছোবল।

গুমরে ওঠা কান্না ভাসে হিমকন্থার আবরণে

নীরব অভিমান খোঁজে শব্দের অন্তরাল।।



২.

ভাঙনের পরে



ঊষাকালের স্বপ্ন নাকি সত্যি কথা বলে

কেমন ছিল সে কল্পনার অভিমুখ? 

ক্যালিডোস্কোপের কুচি কুচি পাথরের মতো 

রং বদলে যাওয়া আপাত অচেনা 

কিছু মানুষের মুখচ্ছবি। 

তারা আসে, যায়,  বাক্য বিনিময় করে 

পরিযায়ী পাখিদের মতোই, 

জাদুকরের মতো বিভ্রম সৃষ্টি করে মননে,

এক সময় টান মেরে ছিঁড়ে ফেলে

যাবতীয় ইলিউশান। 

নগ্ন বিস্ময় সাক্ষী থাকে

মুখোশ পরা পৃথিবীর জটিল কাহিনির।

তখনই….. 

কবিতার পাতা বিষাদ মাখে আচ্ছন্ন।

হৃদয়তন্ত্রীর অযাচিত কিছু সুর

বন্দী যক্ষের মতো নিঃসার জেগে থাকে 

পরিব্যপ্ত আলোড়নে।