রিয়া ঢোল

 


দুটি কবিতা


অখিল প্রেম 

 

ভিতরেতে না রঙ না আলো

দম বন্ধ করা অন্ধকার।

চায়ের কাপের সামনে মুখোমুখি তুমি।

ঠোঁটের বিস্ময়মুগ্ধ লিপস্টিক 

মাছরাঙার সৌন্দর্যের পিপাসা নিয়ে বসেছে।

তাচ্ছিল্যে ভরে দিয়েছ অত্যন্ত সংবেদী ভাষা।

চায়ের কাপেতে মিঠি  রোদ

পাশে হাসি নিরিমিষি বিড়ালিনির।

চোখ তন্দ্রাচ্ছন্ন 

আমরা আজ এক ফুরিয়ে যাওয়া গল্পকে নিয়ে যৌবন গড়তে চাই

অখিল প্রেমের।

 

 

 

অব্যক্ত 

 

ক্লান্তিকর দিন , কথা কিন্তু শেষ হয়নি।

দুজনের শব্দ বিনিময়, মাঝে দীর্ঘ ছায়া

কবিতা শব্দজীবী হয় তাতেই।

সত্তা টুকরো টুকরো করে তৈরি হয়ে চলে

বাল্মীকির জীবন্ত শ্লোক।

কিন্তু বারবার থেকে যাচ্ছে অতৃপ্তি।

প্রসূতি মায়ের মতো বনস্পতি

তিনি বলেন আরও ভাবো 

মনের সঙ্গে সম্মুখ সমরে সৈনিক হতে চাইনি আমি 

শুধু ঘ্রাণ নিতে পারি ঊনত্রিশ বছরে

নিতেও পারি আমৃত্যু 

ইচ্ছেগুলো উড়ে যাচ্ছে মেঘের কবরে

প্রেমিক পুরুষটি বসেছিল অনেকক্ষণ

ঐ ঘাসের উপর

অমন দৃশ্যেও মত্ত আর হইনা আমি।