ভগীরথ সর্দার



দুটি কবিতা

ক্ষয়



তোমার বুকের ভেতর জমানো আগুনের পাশে গিয়ে বসি ৷
হাত সেঁকি ৷ কড়াই পেতে ভেজে নিই ফোলা ফোলা রুটি 
সন্ধ্যাকাশে চাঁদ ডুব দেয় নিভৃতে
তখন আমি জলের নিচে ঘুম পাড়িয়ে রাখি পাষাণ

তোমার বুকের ভেতর জমানো আগুন
ধীরে ধীরে ক্ষয় হতে থাকে ৷

আসন


নিশ্চিত কুয়াশায় ঢেকে রেখেছে সে পথ
সুপ্রাচীন বসন্ত ভুলে , কেন অকারণে পড়ে থাকে পদধ্বনি
সন্দেহভাজন প্রতিশব্দ ভেঙো, সেই তো সুজন
নিবিড় অন্ধকারে তারারাও মানুষ হয়
বুকের ভেতর ধ্বনি ও প্রতিধ্বনি সাজিয়ে অবয়ব গড়ে তুলতে পারে ক’জন!
মুগ্ধের সরণি বেয়ে অপবাদ বেড়ে ওঠে
ঘুম আসে না, অলৌকিক দরজাগুলো খোলা
কোনও নির্জনতা আমারই দু'একদানা ছায়া
কোনও কোনও যন্ত্রণা আমারই আত্মজন।