বর্ণজিৎ বর্মন



দুটি কবিতা



সন্ধ্যা 

 

এক একটি সন্ধ্যা 

এক এক রকম হয় ।

বর্ণে, গন্ধে ,মেঘ ভর্তি ,মেঘহীনা,

যেমন এক কবির উঠোন ভর্তি কবিতা 

সবগুলি এক এক রকম ,

ফুল ,শোক ,অভিমান ,অভিরূপ রস-নীরস মেশানো ভিন্ন স্বাদের ।

 

কোনো দিন সন্ধ্যা বাবলা গাছের শাখা পাতায় চুমু দিতে দিতে নেমে আসে,

কোনো দিন গোসানিমারির কাকীনা রোড ধরে , একটু পায়ে হেঁটে , আলপথে

কোনো দিন শ্যাম্পু করা এলো চুলে ঝুপ করে নেমে আমার বুকে চেপে বসে... 

 

সন্ধ্যা আমার একমাত্র মেয়ের নাম। তবে 

অন্য রকম আর দশটা মেয়ের চেয়ে ,

দিস্তাখাতার মতো -

 

আমি রোজ দেখি একটু একটু করে বড় হচ্ছে সন্ধ্যা ,

ভাবছ দুশ্চিন্তা বাড়ছে , না 

মোটেই না ,

আমার মেয়ে ওই রায়দের বাড়ির মত হলে 

গোটা গ্রাম এনে দেখাব 

এই আমার মেয়ে সন্ধ্যা-

 

হরণ 

 

একটি প্রতিবাদ হওয়ার কথা 

কিন্তু হলো না - নদী এঁকে বেঁকে চলে গেছে ।

 

ভাবনার মরুভূমি জুড়ে

শুধুই ক্যাকটাস ;

 

একটি গাছ পতাকা হাতে

মিছিলে হাঁটতে চেয়েছে -

 

গোপন কুঠার কোমরে ঘা বসায় 

আকাশ জুড়ে কালো মেঘ জমেছিল সেদিন 

 

লাশ পরে থাকে 

পথের ধারে, অসম্পূর্ণ স্বপ্ন 

 

কিছু একটা সংঘটিত হবু হবু করছে -

তা হয় নি আজো

 



  

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন