মঈন মুরসালিন

 




দুটি কবিতা


পেশাজীবী ষাঁড় কিংবা শুভ্রপুরুষ
                                      

শুনে যাও পৃথিবীর স্বপ্নচারীগণ!
আমি আমার আপনজনদের বলছি-
যারা বিত্ত বৈভবের মোহে অন্ধকারকেই
নিজের পথ মনে করে। পেশাজীবী
ষাঁড়ের মতোই যারা বিলিয়ে দেয় ঐশ্বর্য, বোধ।

তোমরা রৌদ্রের জলে ধুয়ে ফেলো কল্বের ভাইরাস
আর মুছে ফেলো অঙ্গগুলো
আম্বর কিংবা জাফরানে
তোমরা আমার মতো হয়ে যাও,
হয়ে যাও নদীর মতো কিংবা
সুবহে সাদিকের মতোন শুভ্রপুরুষ।




হে সত্যবাদী শিশ্ন আমার


দেহের ভেতর ধ্যানমগ্ন তত্ত্ব মানব আর ছায়া
ইভের নাভির জানালায় অশূরের সুর
চুম্বনের মাদকতায় শুদ্ধতম মন আমার
পাপ-পূণ্য, সত্য-মিথ্যার বিচারক করে
কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দেই মহান আত্মাকে
হে সত্যবাদী শিশ্ন আমার, অপরাধ মার্জনা করুন
কেন বার বার ভুলে যাই স্তনের দীর্ঘশ্বাস
কেন ধুয়ে মুছে যায় কামনার ক্যানভাস
হায় তত্ত্ব সর্ব সাধন জাগিয়ে দাও, জাগিয়ে দাও
আদম চির জাগ্রত যৌবন আমার
ইভের কূপে স্মৃতি হাতরিয়ো না
চিতার আগুনে এখনো বসে জৌলুসী বৈঠক
বীর্যপাতের ধ্বংসলীলায় মত্ত যে নারী
সে কি মিথ্যে ভেবে বন্ধ করে সান্ধ্য পূজো?
কেনো আজ মত্ত সবাই সত্য ছাড়া তত্ত্ব নিয়ে
দ্রোহ-দেহের আগুনে পুড়ে পুড়ে আবার জেগে ওঠবে
স্পর্শের কোমল আবেদন।