মৃণালিনী



দুটি কবিতা



বুফে


পৃথিবী একটা বুফে
প্রয়োজনীয় অপ্রয়োজনীয় বিজ্ঞান দর্শন ইতিহাসের নানা ডিস
আলোর পিঠে অন্ধকার থরে থরে সাজানো
চোখ বুলিয়ে নিজের পকেটের ওজনে তুলে নাও
তোমার পছন্দের বস্তু চাইলে ব্যক্তিও!
ইতিহাসের উপাধিধারীদের নবীন রূপ তেল দেয়া ধূর্ত ঘূণ
টুকিটাকি বিক্রি দক্ষতার ওপর নির্ভরশীল
বিনিময় প্রথায় ব্যারগেনিং!
বোকা দিনে করে আর রাতে করে উচ্চক্ষমতাশীল।


হলরুম ও বেডরুমের মধ্যে দাঁড়িয়ে


সিঁড়ি বেয়ে নামতে নামতে নেমে গ্যাছে খাদ
আসল্য জড়ানো হলরুমের হাই-তোলা বেডরুম
ওখানেই ইদানিং বিশ্বসভ্যতা থমকে দাঁড়িয়েছে।
কাম্পেনিং, ত্রাণ, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বেয়ে টুপটাপ
ঝরে পড়ছে মূক ম্যানিকুইন
প্ল্যাস্টিক মুড়িয়ে কে কোথায় হারিয়ে যাচ্ছে
গুপ্ত খুনের এফআইআর লিখে
টিভিতে ভাসছে অনিশ্চিত মৃত্যুর ছায়ায় ব্যান্ডেড ব্রা
সুগন্ধি সবান সান বার্ণ ক্রিম বগলে ডিয়ো স্প্রে করে
ডিজিটাল চোখে বসে থাকো দেওয়াল মুড়ি দিয়ে, নাহলে
নিজেকে বলো, জীবন এক মোহময় মায়াজাল
জন্মের মতো নিশ্চিত মৃত্যুতরীতে একদিন ভেসে যাওয়া।