পূর্ণেন্দু মিশ্র

 




দুটি কবিতা


হাত       

 

যে হাতে কাজের দরকার,

রঙের দরকার, লেখার দরকার,

সে হাতেই ধরিয়ে দিলে সাইনাইড ?

চকচকে ছুরি, প্রলোভন ব্লেড ?

আঙুল তুললে তাকেই গুঁড়িয়ে দিলে ভাঙ্গা স্তম্ভের মত ।

 

তোমার কোনো হাত নেই বলে,

তোমার কোনো হাত নেই বলে,

এইভাবে হে শাসক মিথ্যে অজুহাতে নেমে এলে ।।


 


 আমি               

আমার ভেতরে আরেকটা আমি'র দেখা হয় রোজ,

মনখারাপ হলে তাকে আরও কাছ থেকে দেখি ।

দেখি কীভাবে রোজ বাবার ভিতরে ঢুকে যায় আমি,

দেখি হলুদ রোদের ভিতরে চড়ুইয়ের খুনসুটি,

শহরের ঘোলাটে চিৎকার ।

হারিয়ে ফেলার ভয় হয় । 

সেই হারিয়ে ফেলার ভয়েই যত্নে তুলে রাখি - 

শৈশব কুড়োনো স্মৃতিবক্স,

তাছাড়া তো কিছু নেই আমার ।

কিছুই তো ছিল না । 

আয়নার ভেতরে রোজ ঢুকে পড়ি তাই,

যেভাবে জানলা ঘেঁষে ঘষা মেঘ বৃষ্টি নামায়, 

তেমনি নদীর ঘূর্ণি জল ছুঁয়ে ছুঁয়ে নিজেকে দেখি,

দেখি কীভাবে জলের ভিতরে ছটফট খেলে মাছ ।।

 


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন