বঙ্গ রাখাল

 


দুটি কবিতা

খান সাহেব


 

শত্রুর নিপাত হোক-শ্লোগান মুখে

আমিও ছুঁটি রাস্তার মোড়ে

বহুকাল ধরে আমাদের এই রেওয়াজ

খান বাড়ি বলে কথা-   খান সাহেব বলে ডাকে সবাই

কিন্তু... সমস্যা অন্য খানে

এই পরিচিত পদবীও আজ বলতে লজ্জা পাই

একাত্তর তার প্রমাণ... খান বললেই পিলে চমকে যায়

মনে হয় মুহূর্তে ডুবে মরি জলে- তাকিয়ে দেখি

ঝিলের মাঝে অচেনা মানুষ-দুঃখ নিয়ে বুকে

দাঁড়িয়ে আছে- অচেনা স্বপ্নহীন ঘোড়া...

 

জেনটেল পার্ক


 

আমার পোশাক-আশাকে কোন বিলাসীতা নেই- জিঘাংসু হয়ে উঠিনা কারও নতুন পোশাকে। নিঃশব্দে যে মেয়েটা শাড়ি পোরে হেঁটে এলে দোপাটির ফুল খোঁপায় গুঁজে-সেটা বেশ রক্তের চাপ বাড়ায়- উচ্চ মন নিয়ে কোনদিন গহীন শপিংমলের দিকে গিয়েছি বলে মনে পড়ে না। জেনটেল পার্ক বলে হয়তো কোন জামা-টামার দোকান হবে-সেখানেই কিনেছি উজ্জ্বল চকচকা জামা... এই স্তব্ধতার কালেও তোমার চেরাগ আমার মুখোমুখি-উন্নাসিকতায় উন্মাদ করে তোলে আমাকে-তবু নিজেকে নিজের কাছে বিক্রি করে হয়ে উঠি হিম নিংড়ানো কাঁপনের ভোর...

 

পাকা রাস্তা বা কাঁচা রাস্তা যেখানেই বাড়ুক না কেনো মানুষের চলাচল-সেখানেই বাজে নিঃসঙ্গতার মাদল-তুমিই বলো আমি কি তোমাদের লুকিয়ে গভীরতার বায়বীয় ঘোড়া নিয়ে চালিয়েছি টমটম নাকি মৌনতার পিদিম জ্বালিয়ে হত্যা করেছি নিজের ফেলে আসা সব সম্পর্ক আর সময়... তবু স্বপ্ন দেখি কোন একদিন ময়ুরাক্ষীর চিতায় জ্বলবে আগুন তবু বৃষ্টির ক্ষুধার্ততা চুপিসারে রুমালে মোছাবে চোখ..

 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন