রঞ্জন মৈত্র

 



দুটি কবিতা


 অ্যাম্বুলেন্স

 

চলে যাচ্ছে হুটার দূরে

অবাধ সবুজ করিডোর

গাছ খুঁজতে খুঁজতে চলে যাচ্ছে শিকড়    

ফোনকল ধানকল সেইসব মাঠগুলো

এক বাড়ি ঘন জাম অন্যটি উচ্ছল বেদানা

চিঠিসব করে রব

ভোরগুলো লিকার চায়ের সেরামিক

কথাগুলো নীল রঙ লাগায় সাগরে

পাথরের আগুন থেকে আগরঙা প্রত্নশিলায়

যাই যাই শব্দ যাচ্ছে কল্প স্বল্প ফুঁড়ে

মোবাইলে পেসেন্স খেলা ভালো থেকো

খুব ভালো থেকো।

 

 

 

নবান্ন একটি অফিসের নাম

 

কিলায় উড়ছে নিশান কুলায় পালক

সাদা পাতার উপর দিয়ে যখন ইণ্ডিগো

কালো পাতার উপর দিয়ে কু ঝিক

অরিজিনাল দেখাতে হবে দেখাতেই হবে

ফটোকপি আর ফটোশপ

গোষ্ঠীলড়াই আর জোটভোজন

আকাশ চোখ পিটপিট করলে

মাত্র চারটি শব্দ কুলায় কিলায়

এত চেনা এত জানা বলতে বলতে

ভাত ফুরোয় বালিশ ফুটে ওঠে

ধ্বনির কোথাও পাখি আর ভোরও

সই কিন্তু অরিজিনাল হতেই হবে

খুঁজতে খুঁজতে কাটা হয় আউশ আমন

নাড়াপোড়ার ধোঁয়ার মধ্যে ঢুকে পড়ে স্বাস্থ্য দফতর

ওগো কপিশপ ওগো লো অ্যাঙ্গেল ক্লোজ

কবে থেকে নিজেরই পিছন পিছন চলছি

পায়েস কি হবে!    


--------------------------------------

ছবি ঋণ: গুগল


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন