প্রদীপ চক্রবর্তী

 


ময়ূরের জলটপ্পা 


 এক . 

 

 অর্কেস্ট্রার শব্দ ঐপারে , চৈ - চম্পাগড়ে পৌঁছয় নি এখনো | নৈঃশব্দের জানলাগুলোকে মনে হয়েছিল কারোর হাতে আঁকা | যেখানে গাছ আর পাখিরা ভূমধ্য সংসারভরা মানুষের গানে জতুকক্ষ থেকে পালানোর পথ দেখিয়েছিলো আউলবাউল কিংবা মৃদু কালোয়াতির সুরে ...

 

 

সাহসী যুবতীটি বারবার তোলে ঢেউ ,

নিঃস্ব যুবকটি বাঁশপাতার লম্বা হাতের ছায়ায় কাঁপতে কাঁপতে মিশে যায় ছোট ছোট নিঃশ্বাসের ঘূর্ণিতে ...

নিজেকে প্রানপনে ছিঁড়ে ফেলার সময় মেয়েটি ছিটকে রয়ে গেছে নিঃস্বের ক্ষত - ফুসফুসে 

 

যার ঘেমো শার্টের সোঁদা গন্ধ বুক ভরে মেয়েটি নিয়েছে একসময় 

 

পাখিদের মতো আস্ত ও অটুট গান আজ গুনগুনিয়ে গাইছে  নোলোকপরা রূপবতী মাছ 

 

জলের পিওন নেই | ছুটির চিঠি নেই আজ | নেই পঞ্চানন তলা রোডে ছোট মনোরেল ...

 

পুনর্জন্মের রোমাঞ্চে অধঃপাত থেকে ঢং ঢং ঢং করে বেজে ওঠে সোনালি  গ্র্যান্ডফাদার ক্লক 

 

দুটো শরীরে ঝাল বিরহ 

 

লুকিয়ে মাংস খেতে 

দুই উরু ফাঁক করে ঘন ঘন কোমর দোলাতে থাকে অসীম ...

 

দুই .

 

গাঢ় পাখিদের ঝাঁক , ফিরে যাচ্ছে ঘরে | 

ইয়াসের প্রচন্ড আক্রমণের হাত থেকে বাঁচানোর জন্য থেকে থেকে মাইকিং করছে জলপুলিশ ,

বন্য চাহনির মতো ভেঙে পড়া দিগন্তরেখার ধারে 

ছোট ছোট ডিম ভেঙে নিষিদ্ধ ভাঁজ খুলে , খিদের আকণ্ঠ চিৎকারে বাচ্চারা হা মুখ খুলে থাকে ,

ভুজঙ্গ অঞ্জনে দেখে প্রথম জ্যৈষ্ঠের বিদ্যুৎ ...

 

 

কুসুম কুসুম জলে দু ফোঁটা শ্যাম্পু ফেলে 

পা দুটো ডুবিয়ে রাখে কামাতুরা মেয়েটি ,

 

যুবকটি চন্দ্রাহত | বিষয়বিহীন সৎচাষী |

 

জলের শব্দ ... মাটি মুছে যায় ...

 

জলের শব্দ | নারং , যা নিকেতনমণি | 

 

কারা যেন আব্বুলিশ , 

জিভে সায়নাইট ক্যাপসুল , 

 

রসের চুমুকে সাবলীল অথবা 

ছায়া পেখমে ভেঙে পড়ে 

ময়ূরের প্রথম জলটপ্পা ...

--------------------------------------

ছবি ঋণ: গুগল


 

 

 

 

 


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন