মলয় রায়চৌধুরী

 

লুইস গ্লিক-এর কবিতা : অনুবাদ মলয় রায়চৌধুরী

লাল পপিফুল


বড়ো ব্যাপার হল

একটা মন

না থাকা । অনুভূতি :

ওহ, আমার তা আছে ; ওগুলো

আমাকে নিয়ন্ত্রণ করে। আমার রয়েছে

স্বর্গে একজন মালিক

যার নাম সূর্য, আর মেলে ধরি

তার জন্য, তাকে দেখাই

আমার হৃদয়ের আগুন, আগুন

তার উপস্হিতির মতন ।

অমন গৌরব আর কীই বা হতে পারে

হৃদয় ছাড়া ? হে আমার ভাইরা আর বোনেরা,

তোমরা কি এককালে আমার মতন ছিলে, বহুকাল আগে,

তোমরা মানবজাতি হয়ে ওঠার আগে ? তোমরা কি

তোমাদের অনুমতি দিয়ে্ছ

একবার অন্তত মেলে ধরার, কেই বা চাইবে না

আরেকবার মেলে ধরতে ? কেননা সত্যি কথা

যা আমি এখন বলছি

তা তোমাদেরই মতন । আমি বলছি

কেননা আমি বিধ্বস্ত ।


অতীত


ফিকে আলো আকাশে ফুটে উঠছে

হঠাৎই পাইন গাছের

দুটি ডালের ফাঁকে, তাদের সূক্ষ্ম ছুঁচগুলো 

ঝলমলে পাতার ওপর খোদাই করা

আর এর ওপরে

উঁচুতে, পালকময় স্বর্গ–

বাতাসের সুবাস নাও । গন্ধটা শাদা পাইনগাছের,

বেশ তীব্র হয়ে ওঠে যখন এর ভেতর দিয়ে হাওয়া বয়

আর যে ধ্বনি জাগায় তাও সমানভাবে অদ্ভুত,

কোনো ফিল্মে বাতাসের শব্দের মতন–

ছায়ারা সরে যাচ্ছে । দড়িগুলো

নিজেদের আওয়াজ তুলছে । তুমি এখন যা শুনতে পাচ্ছ

তা পাপিয়ার ডাক, যৌনতার,

পুরুষ পাখি মাদি পাখিকে প্রণয় নিবেদন করছে–

দড়িগুলো সরে যায় । শোবার দোলনা

বাতাসে দোল খায়, বাঁধা রয়েছে

শক্ত করে দুটো পাইনের গাছে ।

বাতাসের সুবাস নাও । গন্ধটা শাদা পাইনগাছের ।

তুমি যে কন্ঠস্বর শুনছ তা আমার মায়ের

কিংবা গাছেরা যে আওয়াজ তুলছে কেবল তাইই

যখন বাতাস তাদের ভেতর দিয়ে বয়

কেননা কোন শব্দই বা তুলবে

যদি কোনোকিছুর ভেতর দিয়ে না যায় ?


প্রথম স্মৃতি


বহুদিন আগে, আমি জখম হয়েছিলুম । আমি বেঁচে রইলুম

নিজে প্রতিশোধ নিতে

আমার বাবার বিরুদ্ধে, এই জন্য নয় যে

তিনি কেমন লোক ছিলেন—

এই জন্য যে আমি কী ছিলুম : সময়ের আরম্ভ থেকে,

শৈশবে, ভেবেছিলুম

ব্যথার অর্থ

আমাকে ভালোবাসা হয় না ।

এর অর্থ আমিই ভালোবাসতুম ।

--------------------------------------

ছবি ঋণ: গুগল


 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন