সৌমনা দাশগুপ্ত





দুটি কবিতা


ডায়েরির গল্প     
সমূহ পাতাদের উড়ে যাওয়ার শব্দের ভেতর 
এক ভ্রান্ত বাজপাখি 
এই তো ডায়েরির গল্প, পাঠপ্রতিক্রিয়া
#
জলের মধ্যে ঠেসে ধরে মুখ
#
শিকার হয়ে যাচ্ছে পায়রা, তার মৃদু ধুকপুক 
একটি তীরের প্রত্যাদেশ থেকে ফিরে
তুমি পুনর্বার উঁচিয়ে ধরছ  চিবুক
ঘুম ভেঙে যায়, মাঝরাতে বারবার 
#
অযাচিত বৃষ্টি নামল, ভিজে গেল ফণা
অব্যয় শব্দের পাশে সাপ
একবার মুখ দেখিয়েই চলে যাচ্ছে শীতঘুমে
#
আনকা শব্দের ঘোরে জেগে উঠছে ভোর
#
নশ্বর পেয়ালায় দু এক স্তবক রং
সেও একদিন কথা বলে
বলে আমাকে সুবর্ণকপোতের ডানা দাও
দাও মৃৎপুষ্পের ঘ্রাণ 
মেলে ধরো বলগা-শকটের এই দোর





ক্যানভাস
খোলাহাসিতে ভেঙে পড়ছে আলজিভ এ বিছানা আমার নয় আমি তো পাথরযুগে থাকি খুবলে খুবলে খাই আমারই ভাইয়ের দেহ দেখো এই মুখ থেকে নাল ঝরে, ঝরে রক্তরস, বীর্য স্নেহের উল্টোদিকে নৌকা বাইতে গিয়ে হাতে শুধু কয়লার দাগ পশুর চর্বিমাখা রং, ছবি হয়, এই হাতে ছবি হয়, আমার প্যালেট জুড়ে লাল ও হলুদ হাড়ের প্রদেশ থেকে আমি তো এনেছি এই মজ্জার গান আগুন শিখিনি তবু লকলক করে এক জিভ, হাওয়ায় হাওয়ায় ওড়ে তার সংকেত কার্বন-মনোক্সাইডের খেতে আমি এক ধীবর-মানুষ ফেরাস ফেরিক কণা, তারা সব মাছ হয়ে আমার গুহার গায়ে ফুটে আছে অস্ত্র বুঝি না আমার তো আছে শুধু পাথরের কোলাহল