রথীন বন্দ্যোপাধ্যায়

 


গুচ্ছ কবিতা


১)

যখন রাত্রি আসে


গাছেরা অন্ধকার হয়

রাতে ফোটা সব সাদা ফুলও অন্ধকার হয়

প্রাচীন বটগাছ থেকে অন্ধকারে নেমে আসে ঝুরি
মাটি ছোঁয় অলক্ষ্যে

প্রাচীন বৃদ্ধের চোখে অন্ধকার আরও প্রশস্ত হয়

অন্ধকারের ভিতর কেউবা সূর্যস্নানের শব্দ সাজায়

আলেয়ারা বলে, ঝুট হ্যায়, সব ঝুট হ্যায়,


২)

ডিম


সিদ্ধ

অতঃপর
শক্ত খোসা ছাড়ালে সাদার ভিতর উজ্জ্বল কুসুম

"গহন কুসুম কুঞ্জ মাঝে...
মৃত্যু

শিতল জমাট একটি নিষ্প্রাণ

পরাগহীন


৩)

ছোট এ বাড়িটা ছুঁয়ে চলে যায় রোদ সন্ধ্যা পেরিয়ে অন্ধকারের ভিতর


এবং আলোর সময়ে
কিংবা আলো আঁধারিতেও
বাড়িটা উজ্জ্বল হয়ে ওঠে
বাড়িটা গান গায় হাসে কাঁদে

স্বাভাবিক শারীরবৃত্তিয়তায়

আবাসিক ক'টি প্রাণ খামোখাই বলে
আাল্লা মেঘ দে, পানি দে,


৪)

পাহাড়ের ওপারে বৃষ্টি পড়ছে


এসো এপারে আমরা দুজন লুডো খেলি

পাহাড়ের ওপারে চারটে গ্রাম ভেসে গেছে

এসো এপারে আমরা ভাবি পাউরুটি জ্যাম জেলি

পাহাড়টার ওপার থেকে এপারে

পাহাড়টার এপার থেকে ওপারে

মেঘ উড়ে আসে

যায়
 

--------------------------------------

ছবি ঋণ: গুগল


 

 

৭টি মন্তব্য:


  1. সিদ্ধ

    অতঃপর
    শক্ত খোসা ছাড়ালে সাদার ভিতর উজ্জ্বল কুসুম
    ... শক্ত খোসা ছাড়ালেই

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. এই মন্তব্যটি লেখক দ্বারা সরানো হয়েছে।

      মুছুন
    2. অনেক অনেক ভালোবাসা, দিশারীদা, তুমি পড়েছ, খুব খুশি হলাম।

      মুছুন