শীলা বিশ্বাস




বিশেষ 'বাংলাদেশ সংখ্যা'
ডিসেম্বর'২০২০


পৃথিবীর কোমল মনোরম প্রেমময়ী ভাব বিনিময়ের স্রোত, অনেক মাটি জল বাতাসের গন্ধ নিয়ে অনেকগুলি ধারা একসাথে সময়ের প্রবাহে বইছে ভিন্ন মাটি ভিন্ন দেশ সেই একই মাতৃদুগ্ধের গন্ধ নিয়ে নতুন রঙ নতুন ফর্ম নিয়ে কাল প্রবাহে মিলে মিশে বইছে এই ভাষাপ্রবাহ আমাদের মুখ নিসৃত কলম নিসৃত ভাষা বিনিময়ের মাধ্যম এই স্রোত বাংলা ভাষা শ্বাশ্বত প্রেমময় এই বাংলা ভাষা অপ্রতিরোধ্য তার প্রবাহের একটি ধারাকে সজীব রাখতে আমাদের এবং সইকথার প্রয়াস  

 

 আমাদের প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ। ২০১৬ সালে একটি কবিতা উৎসবে আমন্ত্রিত হয়ে আমার  বাংলাদেশ যাওয়ার সুযোগ হয়েছিল সেই অনন্য সুন্দর অভিজ্ঞতা ভোলার নয় । যারা বাংলা ভাষা নিয়ে চর্চা করেন তাদের অতিথি বৎসল এবং মাতৃভাষাপ্রেমী এই দেশটাতে জীবনে একবার অন্তত যাওয়া উচিত। দেশভাগের মত ঘটনার দগদগে ঘা বাঙালী আজও বয়ে বেড়ায়। বিশেষ করে আমার মতো অনেকরই  যাদের আদি নিবাস বাংলাদেশে, কাঁটা তারের অস্তিত্ব তারা বিশ্বাস করতে পারে না। সাহিত্য এমন এক মাধ্যম যা দিয়ে এই বিভাজনকে অস্বীকার করা যায়।

 

এবং সইকথায় এই সংখ্যায় আমরা  মেলাচ্ছি দুই বাংলাকে, মেশাচ্ছি বাংলা ভাষার সেই ধারা প্রবাহকে, যে ধারা প্রবাহকে দুর্দম অপ্রতিরোধ্য রাখতে মানুষ একদিন নিজেদের রক্তে মাটি রাঙা করেছিল সেই পবিত্র ভাষা ভূমি বাংলাদেশের ৩০ জন লেখকের ভারতের ১০ জন লেখকের বাংলাদেশ বিষয়ক লেখা এছাড়াও পত্রিকার নিয়মিত বিভাগের ২৬ জন লেখকের লেখায় সমৃদ্ধ কাজ নিয়ে আমাদের এবারকার এবং সইকথা এই সংখ্যা থেকে একটি নতুন বিভাগ  শ্রদ্ধাঞ্জলি শুরু করলাম । এই বিভাগে আমরা স্মরণ করলাম সদ্যপ্রয়াত কবি নাসের হোসেন ও কবি গৌরাঙ্গ মিত্রকে।

 

  এবং সইকথার এই বিশেষ ‘বাংলাদেশ’ সংখ্যা (অষ্টম সংখ্যা) প্রকাশের মধ্য দিয়ে এবং সইকথা পত্রিকা তার পথচলার দ্বিতীয় বর্ষ পূর্ণ করল। এই সংখ্যাটি পাঠকের কাছে পৌঁছাতে পেরে এবং সইকথা গর্বিত। নতুন বছরের আগাম শুভ কামনা জানাই এবং সইকথার লেখক ও পাঠক বন্ধুদের। এভাবেই পাশে থাকুন, ভালো থাকুন।

শীলা বিশ্বাস

২০ ডিসেম্বর.২০২০

* ঋণ স্বীকার:

এই পত্রিকার অলঙ্করণের ছবি গুগলসূত্রে প্রাপ্ত