তোফায়েল তফাজ্জল

 

কবিতা



কেনো এভাবে তাকিয়ে 

 

 

কেনো এভাবে তাকিয়ে – ? 

 

পড়ছি এলানো চুলের শোভা,  যেনো মহুয়ার বাতাসে দুলতে থাকা 

নারিকেল পাতা। 

মাথাকে ঘর্মাক্ত করছে কানের ভূষণ : 

এ কি সকালের উঠতি রোদে খেলতে থাকা 

পাকা আমের ঔজ্জ্বল্যে পাশের ভূভাগ ?

ঘাসের ডগায় হাস্যোজ্জ্বল 

সোনালি শিশির ?

 

পড়ছি রামধনু-ভ্রূ, উন্নত নাকের এ-ঢালু ও-ঢালু,

পাঁপড়ি নরম গোলাপি ওষ্ঠদ্বয় উঠানামা করলে 

মুক্তোদানা টের পায় দাঁতের কী সৌন্দর্য  – পড়ছি তাও!

দৃষ্টি দিচ্ছি চিবুকের দিকে, যেখানে তিলের উঁকি,

সে তিলের সম হতে লাগবে কতো ভরি স্বর্ণ!

এভাবেই মুখটিকে ভাবছি একটি কালজয়ী ছোটগল্পের অধিক। 

 

বিরতির ধার না ধারে  – এভাবে দেহ পড়ায় মনকে নিবিষ্ট করায়

বাক্যেরা অধৈর্য হয়ে ভেতরের বইয়ের দোকানে যে আগুন লাগিয়েছে 

কে হবে এখন এ সবের নির্বাপক ?

 

কেনো এভাবে তাকিয়ে – ? 

পড়ছি পূর্ণিমার পাহাড়-পর্বত, নদীনালা, বাঁক  – সমতল এলাকাও।